English Version

পত্নীতলায় পরিযায়ী পাখির কলকাকলিতে মুখরিত কাঞ্চন দীঘি

পত্নীতলা (নওগাঁ ) প্রতিনিধিঃ পাখির কিচিরমিচির ডাক, পাখির অবাধ বিচরণ দেখতে কার না ভাল লাগে! আর অতিথি বা পরিযায়ী পাখি হলে তো কোনো  কথাই নেই। এমনই শত শত অতিথি পাখির দেখা মিলছে এখন নওগাঁ জেলার পত্নীতলা উপজেলার কাঞ্চন দীঘিতে।পত্নীতলা সদর নজিপুর বাসস্ট্যান্ড হতে ১০কিঃ মি কিলোমিটার দূরে সদর ইউনিয়নের কানঞ্চন গ্রামের হযরত যহর উদ্দীন (র) এর মাজার সংলগ্ন দীঘিতে এখন শত শত পরিযায়ী পাখির আনাগোনা। অবাধে বিচরণ করে এসব অতিথি পাখি প্রকৃতির শোভা বর্ধন করে চলেছে নীরবে। প্রতিবছর এখানে অতিথি পাখির সংখ্যা ক্রমেই বেড়ে চলছে বলে স্থানীয়রা জানায়।  পত্নীতলা উপজেলাতে হাওর-বাওর , বিল না থাকলেও রয়েছে ছোট বড় বেশ অনেক দীঘি ও জলাশয়। এখানে অতিথি পাখিদের জন্য খাবার ও আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় শীতের সময় প্রতিবছর শত শত অতিথি পাখি দেখা যায়। মূলত পিয়াং হাঁস, পাতি সরালি, লেংজা হাঁস, বালি হাঁস, পাতি কূটসহ দেশী জাতের শামুকখোল, পানকৌড়ী, প্রজাতির পাখির কিচিরমিচির ডাকে মুখরিত থাকে এ দীঘিটি সহ আশেপাশের বিভিন্ন জায়গায়।  এলাকাবাসী জানান, শীতের সময় এ দীঘিতে সবসময় সূর্যের আলো থাকে, এখানে শীত কম পড়ে বলেই অতিথি পাখিরা এ দীঘিতে প্রত্যেক বছরে আসে। অতিথি পাখির তারা অত্যন্ত খুশি প্রত্যেক শীতে অতিথি পাখিরা তাদের দীঘিতে আসে এবং  এলাকার সুনাম ও সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে। সকাল বেলা কিচির মিচির শব্দে দিঘীপাড়ের মানুষদের ঘুম ভাঙ্গে । পত্নীতলা জীববৈচিত্র্য সংরক্ষন কমিটির সভাপতি সুমন কুমার শীল জানান শীতের শুরু থেকে এখানে পরিযায়ী পাখি আসতে শুরু করে , প্রতিবছর এখানে পরিযায়ী পাখি আসে তবে দিঘীটিতে এখন বাণিজ্যিক ভাবে মৎস্য চাষ করায় পাখিগুলো থাকতে ভয় পায় । আমি নিজ উদ্যোগে এবং আমাদের সংগঠনের সদস্যদের নিয়ে আমরা এখানকার মানুষদের কে পাখি শিকার না করার জন্য পরার্মশ দিয়েছে ।

সর্বশেষ সংবাদ