English Version

অস্ট্রেলিয়ান তরুণীকে ধর্ষণচেষ্টা, আটক ৪

 

নিউজ ডেস্ক::কক্সবাজারে এক অস্ট্রেলিয়ান পর্যটককে ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনায় তোলপাড় চলছে। অস্ট্রেলিয়ান দূতাবাস থেকে কক্সবাজার ডিসি, এসপির সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে প্রশাসন নড়েচড়ে বসে। এ ঘটনায় কটেজের মালিক শামীমুল হক স্যাম ও নিরাপত্তাকর্মীসহ চার জনকে আটক করেছে পুলিশ।

অস্ট্রেলিয়ান নারী পর্যটক এলিসা বুকি জানান, অস্ট্রেলিয়া থেকে ওয়েব সাইটে মারমেইড বিচ রিসোর্টের সৌন্দর্য দেখে তিনি মুগ্ধ হয়ে যোগাযোগ করে কক্সবাজার আসেন। গুড ভিবেজ কটেজের মালিক শামীমুল হক স্যাম তাকে রিসিভ করে ওই কটেজে নিয়ে যান। একসঙ্গে রাতের খাবারও খান দু’জন। খাবার শেষে কটেজে ঘুমাতে যান বুকি। তার মতে সবকিছু ঠিকঠাক ছিল।

কিন্তু রাতে হঠাৎ করে দুই যুবক তার রুমে ঢুকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। তিনি শোরচিৎকার করলে কটেজের লোকজন এগিয়ে এলে দুই যুবক পালিয়ে যায়। বিষয়টি কটেজ কর্তৃপক্ষকে অবগত করলেও ত্বরিত কোনো প্রতিকার না পেয়ে দূতাবাসকে অবগত করেন ওই অস্ট্রেলিয়ান তরুণী।

রামু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল খায়ের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, রোববার হিমছড়ির পেঁচারদ্বীপে অবস্থিত মারমেইড বিচ রিসোর্টের সঙ্গে লাগোয়া গুড ভিবেজ নামক কটেজে উঠেন অস্ট্রেলিয়ান পর্যটক এলিসা বুকি (১৯)। গভীর রাতে কটেজে ঘুমানোর সময় দুই যুবক ওই কটেজে ঢুকে অস্ট্রেলিয়ান তরুণীকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। ধর্ষকদের সঙ্গে ধস্তাধস্তি করে নারী পর্যটক কটেজ থেকে বের হয়ে চিৎকার শুরু করেন। ওই সময় ধর্ষণের চেষ্টাকারীরা পালিয়ে যায়। পরে ওই পর্যটক জরুরি নাম্বার ৯৯৯-এ ফোন করে পুলিশের সহায়তা চান। ওসি আবুল খায়ের জানান, ৯৯৯-এ ফোন পেয়ে হিমছড়ি পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে ওই অস্ট্রেলিয়ান পর্যটককে উদ্ধার করে। ধস্তাধস্তিতে ওই নারী পর্যটক আহত হওয়ায় তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়। রামু থানার ওসি আরো জানায়, এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে মারমেইডের মালিক আনিসুল হক সোহাগের ভাই শামীমুল হক স্যামসহ ৪ জনকে আটক করা হয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।

পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসাইন জানিয়েছেন, এ ঘটনায় মামলার প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত ঘটনার সঙ্গে কটেজ মালিক শামীমুল হক স্যামের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যায়নি। সন্দেভাজনদের আসামি করে পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করবে বলে জানান তিনি ।

এ বিষয়ে রামু হিমছড়ির পেঁচারদ্বীপ মারমেইড বিচ রিসোর্টের প্রশাসনিক কর্মকর্তা ইয়াছির মুহাম্মদ রিসাত জানান, অস্ট্রেলিয়ান তরুণী ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনা তাদের মারমেইড বিচ রিসোর্টে নয়। প্রায় দেড় কিলোমিটার দূরে অপর একটি কটেজের ঘটনা এটি। যার সঙ্গে মারমেইড বিচ রিসোর্টের কোনো সম্পর্ক নেই।

 

 

সর্বশেষ সংবাদ