English Version

যে কারণে এ বৃদ্ধাকে ‘ডাইনি’ বলে লোকে

নিউজ ডেস্ক:: মানুষ নয়, তাকে ডাইনি ভাবে গ্রামের লোকজন। তার হাতে ও পায়ে কিছু বেশি বেশি আঙ্গুল থাকার কারণেই এই অবস্থা। তাকে কোনো অনুষ্টানে ডাকা হয় না। তার সঙ্গে কথা পর্যন্ত বলতে চায় না কেউ। বাধ্য হয়ে একঘরে হয়ে জীবন কাটাচ্ছেন ৬৫ বছরের বৃদ্ধা নায়ক কুমারী।

তার বাস ভারতের উড়িশ্যা রাজ্যের গঞ্জাম জেলার এক গ্রামে।

সম্প্রতি স্থানীয় এক সংবাদ মাধ্যমে নিজের দুর্দশার কথা তুলে ধরেছেন নায়ক কুমারী। তিনি বলেন, জন্ম থেকেই তার হাতে-পায়ে মোট ৩২টি আঙ্গুল। পায়ে ২০ ও হাতে ১২টি আঙুল। আর্থিকভাবে স্বচ্ছল না হওয়ায় চিকিত্সা করাতে পারেননি তিনি। কিন্তু এলাকার লোকজন তার কষ্ট বুঝে না। তারা মনে করে কুমারি একজন ডাইনি। যদিও দিব্যি সুস্থ্য সবল মানুষ এই বৃদ্ধা।

এ সম্পর্কে স্থানীয় চিকিত্সক ডা পিনাকী মোহান্তি বলেন, এটাকে বলা হয় পলি ড্যাকটাইলি। হাতে পায়ে অতিরিক্ত আঙ্গুল থাকা অস্বাভাবিক কিছু নয়। প্রতি ৫,০০০ মানুষের মধ্যে দু একজনের এরকম হতে পারে।

কিন্তু ওই গ্রামের অধিকাংশ মানুষই অশিক্ষিত ও কুসংস্কারাচ্ছন্ন হওয়ায় কুমারিকে ডাইনি অপবাদ দিয়ে একঘরে করে রেখেছে। এলাকার লোকজনকে কুসংস্কার মুক্ত করে এই বৃদ্ধাকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে হলে স্থানীয় প্রশাসনকে এগিয়ে আসতে হবে।

 

সর্বশেষ সংবাদ