English Version

সিলেট চেম্বার নির্বাচন: প্যানেল পরিচিতি করলো সম্মিলিত ব্যবসায়ী পরিষদ

ডেস্ক রিপোর্ট:: সিলেট চেম্বার অব কমার্সের নির্বাচনে প্যানেল পরিচিতি করেছে সম্মিলিত ব্যবসায়ী পরিষদ।রবিবার নগরের একটি অভিজাত হোটেলের বলরুমে পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত হয়। পরিচিতি সভায় সম্মিলত ব্যবসায়ী পরিষদের সমর্থন দিয়ে বক্তারা বলেন, ‘ঢাকা চট্রগ্রামের পর সিলেট চেম্বার অব কমার্সের অবস্থান। কিন্তু বিগত দিনে ভোট জালিয়াতি ও পকেট ভোটার দিয়ে ২০০২ সাল থেকে এই প্রতিষ্ঠানকে পরিবারতান্ত্রিক করা হয়েছে। এখন সময় এসেছে সিলেট চেম্বারকে পরিবার তান্ত্রিকতার বেড়াজাল থেকে কলুসমুক্ত করার।’

সম্মিলিত ব্যবসায়ী পরিষদের উদ্দেশ্যে বক্তারা বলেন, ‘অপকর্ম করে নেতা হওয়ার প্রয়োজন নেই। বিগত দিনে সদস্য পদ দেওয়ার আগে অন্তত ১০০ জন ভোটার দেওয়ার হিসাব কষতে হতো। এভাবে এক ইউনিয়নের ট্রেড লাইসেন্সে ৪শত ভোটারও করা হয়েছে। একদিনে ৬শত জনকে ভোটার করারও নজির রয়েছে সিলেট চেম্বারে। যে কারণে আদালতেও যেতে হয়েছে।’

বক্তারা আরো বলেন, আমরা কাউকে প্রার্থী করিনি। কেবল ন্যায় পথে থাকায় সঙ্গ দিচ্ছি। যারাই নির্বাচিত হবেন, অন্তত চেম্বারকে আগে জাল ভোটের অপবাদ থেকে মুক্ত করবেন। এ জন্য প্রয়োজন শক্তিশালী নেতৃত্ব।’

সিলেট চেম্বারের সাবেক সভাপতি শাহ আলমের সভাপতিত্বে ও সাবেক সভাপতি ফারুক আহমদ মিসবাহর পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন সিলেট চেম্বারের সদস্য শিল্প ব্যাংকের এপতার হোসেন পিয়ার, কয়লা আমদানিকারক গ্রুপের সাবেক সভাপতি দিলওয়ার হোসেন, সিএনজি পেট্রোল পাম্প ওনার্স এসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি জুবের আহমদ, সিলেট চেম্বারের সাবেক পরিচালক হিজকিল গুলজার, আজাদ, ফ্যাশন হাউজ মাহার সত্ত্বাধিকারী মাহি উদ্দিন আহমদ সেলিম, ইট মালিক ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মকবুল হোসেন।

এসময় তিনটি ক্যাটাগরিতে সম্মিলিত ব্যবসায়ী পরিষদ প্রার্থীদের পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয়। এর মধ্যে পরিচালক পদে অর্ডিনারি ক্যাটাগরিতে আছেন ব্যালট নং-১৩ আবু তাহের মো. শোয়েব, ব্যালট-১৪ মো. মামুন কিবরিয়া সুমন, ব্যালট নং-১৫ এনামুল কুদ্দুস চৌধুরী, ব্যালট নং-১৬ মুকির হোসেন চৌধুরী, ব্যালট নং-১৭ হুমায়ন আহমদ, ব্যালট নং-১৮ মো. ফারুক আহমদ, ব্যালট নং-১৮ মো. নজরুল ইসলাম, ব্যালট নং ২০ জুবায়ের রকিব চৌধুরী, ব্যালট নং-২১ আক্তার হোসেন খান, ব্যালট নং-২২ আব্দুল হাদি পাবেল, ব্যালট নং-২৩ শহীদ আহমদ চৌধুরী, ব্যালট নং-২৪ মোহাম্মদ আব্দুস সালাম।

এই প্যানেলে এসোসিয়েট ক্যাটাগরিতে আরেকটি গ্রুপে প্র্রার্থীরা হলেন ব্যালট-১ মাসুদ আহমদ চৌধুরী মাকুম, ব্যালট-১ মো. এমদাদ হোসেন, ব্যালট-৩ পিন্টু চক্রবর্তী, ব্যালট-৪ আব্দুর রহমান, ব্যালট-৫ চন্দন সাহা, ব্যালট-৬ মো. আতিক হোসেন।

গ্রুপ ক্যাটাগরিতে সম্মিলিত ব্যবসায়ী পরিষদের প্রার্থীরা হলেন তাহমিন আহমদ, ওয়াহিদুজ্জামান চৌধুরী, আমিনুজ্জামান জুয়াহির।

সিলেট চেম্বার অব কমার্সের নির্বাচন আগামী ২১ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। চার ক্যাটারিতে ভোটার রয়েছেন ২ হাজার ৬৫ জন। এরমধ্যে অর্ডিনারিতে ১ হাজার ৪১৩ জন, এসোসিয়েট ১ হাজার ৪০ জন, গ্রুপ ক্যাটাগরিতে ১১ এবং টাউন ১টিতে কেবল একজন। চারটি গ্রুপে অর্ডিনারি ক্যাটাগরিতে জনপ্রতি ১২ ভোট, এসোসিয়েটে ৬ ভোট, গ্রুপে ৩ ভোট এবং টাউন ক্যাটাগিরিতে ১ ভোট দিতে পারবেন ভোটাররা।

 

সর্বশেষ সংবাদ